শনিবার, ১৩ এপ্রিল ২০২৪, ০৫:৫৬ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
শিরোনাম :
উখিয়ার নাউট্টা সেলিমের নকল মসলার ব্যবসায় ইয়াবার গন্ধ ‘উখিয়া নাগরিক পরিষদ’ নামের সামাজিক সংগঠনের আত্মপ্রকাশ উখিয়ায় মাঠে চষে বেড়াচ্ছেন যেসব প্রার্থীরা : উপজেলা পরিষদ নির্বাচন ডাম্পারের বেপরোয়া গতির মূল হাতিয়ার মাসোহারা’ উখিয়ায় সড়ক নির্মাণে দুর্নীতি ও অনিয়মের শেষ নেই বন কর্মকর্তা সাজ্জাদের মৃত্যুর ঘটনায় যাদের বিরুদ্ধে মামলা বন কর্মকর্তা সাজ্জাদের মৃত্যুতে উখিয়া অনলাইন প্রেসক্লাবের শোক উখিয়ায় এপিবিএন পুলিশের গাড়ির ধাক্কায় শিশু নিহত: মায়ের আহাজারিতে ভারী হাসপাতাল প্রাঙ্গণ! পাহাড় রক্ষা করতে গিয়ে মাটিখেকোর ঘাতক ডাম্পার কেড়ে নিলো বিট কর্মকর্তা সাজ্জাদুজামানের প্রাণ.! উখিয়ার চিহ্নিত মাদক কারবারি জয়নাল বেপরোয়া

লোহাগাড়ায় ধর্ষণের পর ভিডিও ধারণের ঘটনায় আটক ১

লোহাগাড়া প্রতিনিধি / ১০৭ বার
আপডেট সময় : রবিবার, ২ অক্টোবর, ২০২২

 

ধর্ষণের পর ভিডিও ধারণ করে ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেওয়ার ভয় দেখিয়ে টাকা হাতিয়ে নেওয়ার মামলায় কায়সার নামের এক যুবককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

গত শুক্রবার (৩০ সেপ্টেম্বর) রাতে তাকে আটক করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন লোহাগাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ আতিকুর রহমান। মামলার অপর আসামী জালাল পলাতক রয়েছেন।

গ্রেফতারকৃত আসামী হলেন, লোহাগাড়া উপজেলা বড়হাতিয়া ইউনিয়ন ২ নং ওয়ার্ড হাজী পাড়ার মোঃ আলীর ছেলে মোঃ কায়সার। পলাতক আসামী একই ওয়ার্ডের তৈয়ার পাড়ার মৌলানা নুর আহমদের ছেলে জালাল উদ্দিন।

জানা যায়, গত ২৫ সেপ্টেম্বর পাশবিক নির্যাতনের শিকার হন চট্টগ্রামের লোহাগাড়া উপজেলার দুই নারী। এ ঘটনায় গত ২৯ সেপ্টেম্বর লোহাগাড়া থানায় একটি মামলা দায়ের করে ভুক্তভোগী নারী। যার মামলা নং ৪১/২২।

এজাহার সূত্রে জানা যায়, ২৫ সেপ্টেম্বর সকাল ১১ টার দিকে বিদ্যুৎ বিল দিয়ে রিকশাযোগে বাড়ি ফিরছিলেন দুই নারী। বড়হাতিয়ার মালপুকুরিয়া ব্রিজের সামনে পৌঁছালে তাদের গতিরোধ করে অভিযুক্ত কায়সার এবং জালাল উদ্দিন। তাদেরকে জোর করে তস্থানীয় তৈয়বের পাড়ায় একটি পরিত্যক্ত টিনশেড ঘরে নিয়ে যায়। সেখানে তাদের দুজনকে ধর্ষণ পরবরতী বিবস্ত্র করে ভিডিও ধারণ করে। এরপর থেকেই সেই ভিডিও ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেয়ার হুমকি দিয়ে ভুক্তভোগীদের কাছ থেকে আদায় করে মোটা অংকের টাকা। এ ঘটনায় লোহাগাড়া থানায় মামলা দায়ের করেন তারা।

এরপর ভুক্তভোগী দুজনকে ভর্তি করা হয় চট্টগ্রাম মেডিকেলের ওসিসিতে। প্রাথমিকভাবে পরীক্ষায় ধর্ষণের আলামত পাওয়া গেছে বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা।

স্থানীয়রা জানান, কায়সার ও জালালের বিরুদ্ধে এলাকায় বিভিন্ন অপরাধে জড়িত থাকার অভিযোগ আছে। মাদক ব্যাবসা, মাদক সেবন ও একাধিক মামলার আসামী তারা।

লোহাগাড়া থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আতিকুর রহমান জানান, ধর্ষণের ভিডিও ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেয়ার ভয় দেখিয়ে টাকা আদায়ের ঘটনায় দাযের করা মামলায় আমরা একজনকে গ্রেফতার করে আদালতে প্রেরণ করেছি। পলাতক আসামীকে গ্রেফতার প্রক্রিয়া অব্যাহত রয়েছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর

এক ক্লিকে বিভাগের খবর
%d bloggers like this:
%d bloggers like this: