শনিবার, ১৩ এপ্রিল ২০২৪, ০৬:৫৩ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
শিরোনাম :
উখিয়ার নাউট্টা সেলিমের নকল মসলার ব্যবসায় ইয়াবার গন্ধ ‘উখিয়া নাগরিক পরিষদ’ নামের সামাজিক সংগঠনের আত্মপ্রকাশ উখিয়ায় মাঠে চষে বেড়াচ্ছেন যেসব প্রার্থীরা : উপজেলা পরিষদ নির্বাচন ডাম্পারের বেপরোয়া গতির মূল হাতিয়ার মাসোহারা’ উখিয়ায় সড়ক নির্মাণে দুর্নীতি ও অনিয়মের শেষ নেই বন কর্মকর্তা সাজ্জাদের মৃত্যুর ঘটনায় যাদের বিরুদ্ধে মামলা বন কর্মকর্তা সাজ্জাদের মৃত্যুতে উখিয়া অনলাইন প্রেসক্লাবের শোক উখিয়ায় এপিবিএন পুলিশের গাড়ির ধাক্কায় শিশু নিহত: মায়ের আহাজারিতে ভারী হাসপাতাল প্রাঙ্গণ! পাহাড় রক্ষা করতে গিয়ে মাটিখেকোর ঘাতক ডাম্পার কেড়ে নিলো বিট কর্মকর্তা সাজ্জাদুজামানের প্রাণ.! উখিয়ার চিহ্নিত মাদক কারবারি জয়নাল বেপরোয়া

ঘুর্ণিঝড় মোখা’ আতংকে নির্ঘুম রাত কাটাচ্ছে উখিয়াবাসী

ডেস্ক রিপোর্ট, ডেইলী কক্স নিউজ। / ৭৯১ বার
আপডেট সময় : শনিবার, ১৩ মে, ২০২৩
মোখা

এম ফেরদৌস ( উখিয়া কক্সবাজার)::

ঘুর্ণিঝড় মোখা মুখ তুলে রেখেছে, কখন যে ছোবল দেয় সেই ভয়ে নির্ঘুম রাত কাটাচ্ছে কক্সবাজারের উপকূলীয় অঞ্চলগুলো।জানা যায়, ১৯৯১ সালে সুপার সাইক্লোনের সময় কক্সবাজার জেলাসহ প্রাণ হানির ঘটনা ছিল অসংখ্য মানুষের। ক্ষয়ক্ষতি হয়েছিল লক্ষাধিক গৃহপালিত পশুর। গৃহ হারা হয়েছিলেন সহস্রাধিক পরিবার। এসকল পরিবার এখন ঘুরে দাড়ালেও ঘুর্ণিঝড় মোখা’র কারনে আবার  ভয়ে নির্ঘুম রাত কাটাচ্ছেন কক্সবাজারবাসী।

দক্ষিণ-পূর্ব দিকে বাঁক নিয়ে আবহাওয়ার গাণিতিক মডেল অনুযায়ীই এগুচ্ছে অতি প্রবল ঘূর্ণিঝড় মোখা। আরও শক্তি সঞ্চয় করে শনিবার রাত ২ টার পরে সর্বোচ্চ পর্যায়ে পৌঁছবে এটি।

সরেজমিনে, উখিয়া উপজেলার অন্যতম ঝুঁকিপূর্ণ এলাকা জালিয়াপালং ইউনিয়নে ঘুরে দেখা যায়, সেখানে অধিকাংশ মানুষ জেলে ও কৃষি নির্ভর জীবিকা নির্বাহ করেন। শিক্ষার আলোয় সম্প্রতী কিছু পরিবারে সচেতনতা এলেও অধিকাংশ মানুষের এখনও হয়নি আবহাওয়া সম্পর্কে সঠিক সচেতনতা। তবে সরকার এ বারের যে সকল প্রস্তুতি রয়েছে মানুষ যদি সকল নির্দেশনা পালন করে তাহলে বিগত বছরের মতন তেমন কোন ক্ষয়ক্ষতির সম্মুখীন হতে হবে না এ এলাকাবাসীর।

জালিয়াপালংয়ের এক জেলে জানায়, আমার বসতঘর টিনের হলেও সমুদ্রের কাছাকাছি কখন যে কি হয়ে যায় তার কোন হিসাব নেই। খুব ভয়ে আছি। শুনেছি মোখা ঘুর্ণিঝড় অনেক ভয়ংকর রুপ নিয়েছে। তাছাড়া ১০ নং মহা-বিপদ সংকেত দিয়েছে। সেখানে কিভাবে ঘুম হয়। যদিও আমরা আশ্রয় কেন্দ্রে চলে যাব কিন্তু বাড়ির জন্য চিন্তায় ঘুম হবে না।

সংশ্লিষ্ট সুত্রে জানা গেছে, উখিয়ায় ৪৬টি সাইক্লোন শেল্টার এবং ৬০০ সেচ্ছাসেবক শুকনো খাবার প্রস্তুত রয়েছে’। ঘুর্ণিঝড় মোখার মোকাবেলায় প্রশাসনের পক্ষ থেকে নেওয়া হয়েছে ব্যাপক প্রস্তুতি।

উখিয়া উপজেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসনসহ অসংখ্য সেচ্ছাসেবী সংগঠন থেকে খোলা হয়েছে কন্ট্রোল রুম। ইউনিয়ন পর্যায়ে সার্বিক খোঁজ খবর নিতে স্থানীয় সরকার জনপ্রতিনিধি ও সচিবদের সাথে সার্বক্ষনিক যোগাযোগ রাখা হচ্ছে। লোকজনদের আশ্রয় কেন্দ্রে নিয়ে আসার জন্য প্রস্তুত রাখা হয়েছে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ইমরান হোসাইন সজীব সার্বক্ষনিক খোঁজ খবর নিচ্ছেন ঝুকিপূর্ণ এলাকার মানুষের।

উখিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ইমরান হোসাইন সজীব বলেন, ঘর্ণিঝড় মোখা মোকাবেলায় উপজেলা প্রশাসনের সংশ্লিষ্ট সকল দপ্তর সজাগ রয়েছে। জালিয়াপালং ইউনিয়নসহ ঝুঁকিপূর্ণ এলাকাগুলো বিশেষ গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে।

এদিকে আবহাওয়া অধিদপ্তরের সুত্রমতে, বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট ঘূর্ণিঝড় মোখার কারণে কক্সবাজারে ১০ নং মহা-বিপদ সংকেত সংকেত দেখিয়ে যেতে বলেছে আবহাওয়া অফিস।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর

এক ক্লিকে বিভাগের খবর
%d bloggers like this:
%d bloggers like this: